কিছু কথোপকথন

কিছু কথোপকথন

তৃষা : অনি কত রাত হল সে খেয়াল আছে ? অনিকেত : কি করব – ঘুম আসছে না যে ….. তৃষা : বর্ষার ঠান্ডা হাওয়ায় এ ভাবে বারান্দায় এত রাতে দাঁড়িয়ে – ঠান্ডা লেগে যাবে অনি …. অনিকেত : দেখ তৃষা কত দিন পর আজ আকাশটা তারা ঝলমলে, বহু দিন একটানা বৃষ্টির পর আজ আকাশটা মেঘ মুক্ত নির্মল – সব কটা তারা দেখা যাচ্ছে …… তৃষা : কিন্তু হাওয়া টা তো ঠান্ডা, তোমার যে একটুতেই ঠান্ডা লেগে যায় অনি — তাছাড়া আজকাল তোমার সিগারেটের পরিমাণ টা বেড়েই চলেছে — তুমি…

Read More

প্রতীক্ষা

প্রতীক্ষা

শরতের পেঁজা তুলো মেঘ ….. ডাকবি নাকি আবার সেই চেনা নামটি ধরে আমার ,,,, আজ ও আমি বসে-শুনতে সেই ডাক – যে মধুর শব্দে আজও আলোড়িত হয়-       হৃদয় খানি আমার । শরতের পেঁজা তুলো মেঘ ….. দিবি নাকি একটু পরশ আমায় ,,,,, যে পরশে শিহরণ তোলে – এ মন – প্রাণ আমার । শরতের পেঁজা তুলো মেঘ ….. ঝরাবি কি বারি ধারা- আমার ই উপর  ,,,, যে বারিধারায় সিক্ত এ মন – প্রাণ – তোকে চাইবে-করতে আলিঙ্গন । শরতের পেঁজা তুলো মেঘ …… এনেছিস কি শিউলির মাদকতা ভরা সুমিষ্ট…

Read More

রঙিন

রঙিন

হাজার রঙের মিলনে – রঙিন এ মন , বলে যায় কত কথা – ভরে দেয় কত রঙ ।                        সাদা কাগজের পাতা –     ভরে কলমের খোঁচায় , কিম্বা ভরে ওঠে – আঁকিবুঁকি রঙ পেন্সিলের ছোঁয়ায় । মন চায় বলতে – জমানো কত কথা – কত ব্যথা , কিছু ভাষা পায় – কিছু বা রয়ে যায় হয়ে ভাষাহীনা ।                           কত সম্পর্ক যায় ভেসে –      বেমালুম মিথ্যার জোয়ারে , দিন যায় রাত আসে – সময়ের চক্রবূহ্যে স্মৃতি বয়ে নিয়ে ,                           ফেরে সম্পর্ককে । কখন বা কত কথা –…

Read More

একটু দেরী হয়ে গিয়েছিল

একটু দেরী হয়ে গিয়েছিল

সখ ছিল তোর , এলো চুলে অস্তমিত সূর্যের আলো-আঁধারিতে দেখবি আমায় পশ্চিমের বারান্দায় দাঁড়িয়ে তোর অপেক্ষায় …… পড়ন্ত বিকেলের সোনা রোদ যখন জানলার নীল কাঁচ ভেদ করে গায়ে এসে পড়ল মনে পড়ে গেল সে কথা ….. মনে পড়ে গেল – সূর্যোদয়ের রঙ গায়ে মেখে সমুদ্র সৈকত চলতে চলতে আমায় জানিয়ে ছিলি তোর ইচ্ছের কথা ……… বলেছিলালম – আজই নয় কেন  — সূর্যাস্তের বেলায় এসে দাঁড়াব এই সৈকতে – দেখবি দু-চোখ ভরে …… বলেছিলি না  — ঐ পশ্চিমের বারান্দা – সূর্যাস্ত আর সেই সময়ের এলো চুলে দাঁড়ানোই তোর চাই …… সময়ের…

Read More

মনের কথা

মনের কথা

__ হাতের মেহেন্দির রঙ এখোন ও তৃষার হাত থেকে মলিন হয় নি  — দীপ্ত বেশীদিন ছুটি না পাওয়ায় বিয়ের পনের দিন এর মাথায় USA ফিরে গেছে । তৃষার ভিসা রেডি হয়নি  – তারপর স্কুলের চাকরী ছাড়বো বললেই তো ছাড়া যায় না । তাই ঠিক হয়েছে মাস তিনেক পর ও একাই এ দেশের পাততাড়ি গুটিয়ে পাড়ি দেবে দীপ্তর কাছে নতুন জীবনের উদ্দেশ্যে । আর তাছাড়া এদেশে আছেই বা কে  — মা – বাবা অনেক দিন আগেই গত হয়েছেন  — একমাত্র ভাই তার পরিবারের সাথে কোলকাতায় সেটল । আজ বুদ্ধ পূর্ণিমা –…

Read More