আমাদের পেন্সিল খেলা

আমাদের পেন্সিল খেলা

নামজাদা এক মিশনারি স্কুলে পড়াশোনা করেছি। আনন্দময় এক আশ্বিনের সকালে হঠাৎ মনে পড়ল ছেলেবেলায় হারিয়ে যাওয়া এক অভিনব খেলার কথা। আমরা খেলাটি খেলতাম ক্লাসে – নিয়মিত- টিফিনের সময়। খেলাটি হল, পাশাপাশি খাতাগুলো রেখে – যা নাকি বাড়িঘর-অফিস কাছারি- স্কুল কলেজ- পাড়া – রাস্তা ইত্যাদি, আর ছিল নানা আকারের পেন্সিল, যারা প্রতিনিধিত্ব করত আমাদের আশেপাশের মানুষজনকে – যাদের সঙ্গে ছিল আমাদের রোজকার ওঠাবসা, নানান আদান প্রদান, বিনিয়োগ ইত্যাদি। সেইসব চরিত্ররা, যেমন বাবা,মা,ভাই,বোন,আত্মীয়স্বজন,পাড়া-প্রতিবেশী,শিক্ষিকা,বন্ধুরা মায় মুদিওয়ালাও পর্যন্ত নানান পেন্সিলের মাধ্যমে ও আমাদের monologue এ প্রান পেয়ে অনর্গল বিভিন্ন স্বরক্ষেপনে, আবেগে জীবন্ত – প্রাণবন্ত…

Read More

অসময়ের বৃষ্টি

অসময়ের বৃষ্টি

খুব অসময়ের বৃষ্টি …. সকাল থেকে ছিপছিপ করে পরেই চলেছে ….থামবার নামটুকু নেই …. টিয়া গুগল এ একবার ওয়েদার ফোরকাস্টিং টা চেক করলো … ওরে বাবা …. এত বলছে নেক্সট চার দিন এমন ই চলবে ….এই নভেম্বর এর মাঝে এমন বৃষ্টি ভালো লাগে !হাল্কা ঠান্ডা ও পড়েছে ….টিয়ার মন টা খারাপ হয়ে গেল …. বেশ একটা টানা ছুটি পেয়েছিল সে … অর্ক ও … ভাবছিল এই সুযোগে একটু যদি কাছে পিঠে ঘুরে আসা যেত … কিন্তু এমন ওয়েদার থাকলে গিয়ে লাভ নেই ….. অর্ক আজ এখনো ফেরেনি অফিস থেকে ……

Read More

বিবাহ বার্ষিকী

বিবাহ বার্ষিকী

অনেক চেস্টা করেও দীনেন আটকাতে পারলোনা । ছোটো মেয়ে সঞ্চারী আশাপূর্ণাকে নিজের কাছে নিয়ে গেল । বললো ,“মার একটু বিশ্রাম দরকার ,আমার কাছে মাসখানেক থাকবে । ” কিন্তু গেলে কী হবে ? সকাল বিকেল দীনেন ফোন করতে লাগল কখন ওর প্রেসারের ওসুধ , কখন ডাইবেটিসের ওসূুধ আশাকে দিতে হবে । ওরা যেন ঐ পিজা বা পাস্তা ওকে না খাওয়ায় । ওর পাতলা ঝোলভাত খাওয়াই ভালো । ১৬ দিনের মাথায় , সবাইকে অবাক্ করে দীনেন মাঝরাতে মেয়ের বাড়িতে পৌছে গেল । সঞ্চারী বললো ,“বাবা তুমি মাকে ছেড়ে একদম থাকতে পারো না…

Read More

নির্মাল্য স্মরণে – “বইপাগল ছেলেটা”

নির্মাল্য স্মরণে – “বইপাগল ছেলেটা”

“যারা নিয়মিত বই পড়তে অভ্যস্ত নন বা খুব একটা পছন্দ করেন না বা খুব কাজের চাপে সময় পান না তাদের কাছে আমার এই অনুরোধ যে আপনাদের হাতের কাছে রয়েছে এমন যে কোন বই তুলে নিন ও প্রতিদিন নূন্যতম একপাতা করে পড়ুন।দেখবেন আপনার ভালো লাগবে।”নিজের ফেসবুকের দেওয়ালে বার বার এই আবেদন জানাত ছেলেটা। সে নিজেও যেমন বইপাগল ছিল তেমনি সবসময় চাইত তার আসেপাশের মানুষজনও যেন বাজে কাজে সময় নষ্ট না করে সেই সময় বই পড়ে। সে চাইত অন্যকোনো নেশায় অর্থ ব্যয় না করে সেই অর্থ যেন মানুষ বইয়ের জন্য খরচ করে।…

Read More

” Let a thousand smiles blossom “

” Let a thousand smiles blossom “

I still remember my first day as volunteer counselor at Y. B. L. Nair Municipality hospital’s Radiotherapy department popularly known as R building. There were rows of patients sitting in the corridor waiting for their turn to meet the Doctor. Their gloomy faces generated panic in me. How will I watch them go through the ordeals of chemo and radiation day after day? As an ex teacher, I was familiar with student- counselling. But counselling Cancer patients looked very daunting and tough, in spite of my psycho-oncology training. I prepared…

Read More

“দ্যা আননোন ইমোশন”

“দ্যা আননোন ইমোশন”

১ ইউ কেন? ভারী মজা লাগল আমার, এমনকি, জায়েশ ভাই পর্যন্ত কৃষ্ণা কে ক্রুষ্ণা বলে ডাকছে… আমি হাতছানি দিয়ে ডাকলাম কৃষ্ণা কে, – ম্যাঁ তুঝে কৃষ্ণা বুলাউঁ তো চলেগা? বেশ যেন কৌতূক পেয়ে গেল আমার কথায়। হেসে, দৌড় দিয়ে চলে গেল ওদের ভাঙ্গাচোড়া ছনের শেডটার পেছনে, আপাতত ওটাই আমাদের তাজ প্যালেস। জায়েশ ভাই এর সাথে এই বার্ড সাঞ্চুয়ারীতে আমার চলে আসাটাও রীতিমতো কাকতালিও বলা চলে। জামনাগরে ট্রান্সফার হয়ে আসার পরেই বুঝছিলাম, এই শহরটার একটা কি জানো টানতো আমাকে, হতে পারে সেটা নতুন জায়গার মোহ বা সাইটের হাড়খাটুনি কাজের থেকে নিস্তার…

Read More

উপজাযক

উপজাযক

মোবাইলের ডাকে ঘুমটা ভেঙ্গে গেল। শীতকাল , লেপের তলার ওম থেকে হাতটা বের করতে ইচ্ছে করছিল না। বেশ বোঝা যাচ্ছে এখনো বেশী বেলা যায় নি। হাতটা বাড়িয়ে ফোন টা ধরতেই, ওধার থেকে মহিলা কন্ঠ, “ফণীবাবু, আজকে আমার রক্ত নিতে লোক পাঠানোর কথা ভুলে যাননি তো?আটটার মধ্যে যেন অবশ্যই আসে। কারণ, গতকাল রাত আটটায় খেয়েছি”। আমি হু, হ্যাঁ , কে জিজ্ঞেস করার আগেই লাইনটা কেটে গেল। খানিকক্ষণ শুয়ে থাকার পর, কি মনে হল, উঠে পড়লাম। বাথরুম এ গিয়ে চোখে মুখে জল দিয়ে, এক কাপ চা করে নিয়ে ঘরে এলাম। বারিতে আমি…

Read More

বার্বি ডল

বার্বি ডল

রীমাদেবী সবে বিছানায় গা এলিয়ে দিয়েছেন আর তখনই ডোরবেলটা বেজে উঠল বলে উনি একটু অবাকই হলেন, এই ভর দুপুরে আবার কে এলো? কষ্ট করে উঠে দোতলার বারান্দায় গিয়ে নিচে তাকালেন আর মনটা খুশিতে ভরে উঠল। হাসি হাসি মুখ করে উপরের দিকে তাকিয়ে আছে সীমা, ওনার ছোট মেয়ে।মেয়েকে দাঁড়াতে বলে রীমাদেবী তার নাতিকে বললেন, যা তো রে লাট্টু, নিচের দরজাটা খুলে দিয়ে আয়, তোর রাঙা পিসি এসেছে। রাঙা পিসি এসেছে, রাঙা পিসি এসেছে বলতে বলতে নিচে গিয়ে দরজাটা খুলে দিল লাট্টু। রাঙা পিসিকে একা দেখে জানতে চাইল, মিষ্টুকে আননি? – আমি…

Read More

মনের কথা

মনের কথা

__ হাতের মেহেন্দির রঙ এখোন ও তৃষার হাত থেকে মলিন হয় নি  — দীপ্ত বেশীদিন ছুটি না পাওয়ায় বিয়ের পনের দিন এর মাথায় USA ফিরে গেছে । তৃষার ভিসা রেডি হয়নি  – তারপর স্কুলের চাকরী ছাড়বো বললেই তো ছাড়া যায় না । তাই ঠিক হয়েছে মাস তিনেক পর ও একাই এ দেশের পাততাড়ি গুটিয়ে পাড়ি দেবে দীপ্তর কাছে নতুন জীবনের উদ্দেশ্যে । আর তাছাড়া এদেশে আছেই বা কে  — মা – বাবা অনেক দিন আগেই গত হয়েছেন  — একমাত্র ভাই তার পরিবারের সাথে কোলকাতায় সেটল । আজ বুদ্ধ পূর্ণিমা –…

Read More

একটু ভাবুন

একটু ভাবুন

গত ১৫ ই মার্চ ২০১৬, জনৈক বাংলা দৈনিকে একটা লেখা পড়ে ভীষন আশ্চর্য হয়ে গেছিলাম। ভারতবর্ষ কি পুরুষ বিদ্বেষী রাষ্ট্র? প্রায় একডজন যুক্তি তার সপক্ষে দাঁড় করানো হয়েছিল।এখন অনেক জায়গাতেই শোনা যায় স্বাধীনচেতা আধুনিকা নারীর তত্ব।  আসলে পুরুষতন্ত্র বা নারীবাদ দুটোর কোনওটাই কোনও রাষ্ট্রের মজ্জাগত সমাজবিভাজনের পক্ষে আদর্শ হতে পারেনা। এর থেকে অনেক বেশী রাষ্ট্রের উন্নতি হতে পারে যদি মানবতাবাদকে গুরত্ব দেওয়া হয়।একধরনের পুরুষের একনায়কতন্ত্র যেমন সৃষ্টিশীল এক শক্তিকে কুক্ষিগত করে রাখে সংসারের বিধান দিয়ে।তাদের কাছে নারী মানেই সকাল থেকে রাত অবধি সংসারের ফাইফর্মাশ খাটবে, কারণে অকারণে ফোঁস করা যাবেনা।…

Read More
Page 9 of 11
1 7 8 9 10 11