কৃষ্ণকলি

কৃষ্ণকলি

তোমায় আমি বলছি,- তুমি শুনছো কৃষ্ণকলি? শরত্ মেঘের আড়াল থেকে অতলস্পর্শী দুইটি চোখে আজও আমি তোমায় দেখি নিষ্পলকে। ছেঁড়া মেঘের ফাঁকটি দিয়ে সূর্য যখন ঝাপটে পড়ে তোমার গায়ে। লাজে ঘেরা মুখটি তোমার রামধনু রঙ ধরে। তখন আমি তোমায় দেখি নিষ্পলকে। গেরুয়া রাঙা বিকেল বেলায় নদীর পাড়ে, দামাল বাতাস দুষ্টুমিতে, যখন তোমার ওড়না খানা উড়িয়ে নেয়। লজ্জা পেয়ে কৃষ্ণকলি তুমি যখন হাতটি দিয়ে মুখটি ঢাকো, তখন আমি তোমায় দেখি দুষ্টু চোখে। পাগল করা কালো চুলে কৃষ্ণকলি যখন তুমি আকাশ ঢাকার চেষ্টা করো। তখন আমি দুইটি আঁখি বন্ধ করে ওতপেতে রই তোমার…

Read More

ক্লোরোফিল এর শিকড়

ক্লোরোফিল এর শিকড়

আজ ক্লোরোফিল সবুজ মন আঁকুক। আজ একটা নদী পেতে দি বর্ণান্ধতার বুকে। আজ ঝর্ণায় আছড়ে পড়ুক ভালোবাসা। আজ সূর্য অস্তে সব গ্লানি পড়ুক ঝুকে। তোমার হাতে যখন তুলে দিয়েছিলাম কলম, বলিনি কি লিখতে এক টুকরো নীল আকাশ? সাদা কাগজের এক কোণে জমা রক্তে, রাঙতে কি বলি নি এক ফালি আশ্বাস। কেন সাইক্লোন এর থেকে ছিনিয়ে নাও নি গতি? তবে কেন, কেন তুমি বুঝতে পারো নি শিকড়? আজ কবিতার জোয়ার ভাটায় মেতে….. কেন পারো নি বন্ধনেতে হতে অনড়?আজ ক্লোরোফিল আঁকুক, সবুজ দ্বীপের ছবি। তোমার মনের সাইক্লোন, আজ না হয় শোনাক ভৈরবী।…

Read More

অপ্রেম পত্র (প্রথম অংশ)

অপ্রেম পত্র (প্রথম অংশ)

বাবুয়া, আজ বহু বহু দিন পর আবার তোমায় চিঠি লিখছি ।মাঝে মাঝে যে চিঠি লিখতে ইচ্ছে হয় নি, এ কথা বলা মিথ্যা বলা হবে ।ইচ্ছে করে, ভীষণই ইচ্ছে করে – কিন্তু কিছু আর গুছিয়ে উঠতে পারি না ।কেমন যেন এলোমেলো হয়ে গেছি ।যত্নে গাঁথা মালা ছিঁড়ে মোতিগুলো চারিদিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে গেছে ।কি জানি, কেন মাঝে মাঝে ছিঁড়ে যায় আমার গাঁথা মালা ।আর ছেঁড়েই যদি, আমি কেন সেই ছড়িয়ে ছিটিয়ে যাওয়া মোতিগুলো কুড়িয়ে আবারও মালা গাঁথি ?! নিজেকে চেনাও বুঝি বা সম্পূর্ণ হল না আজও আমার । তুমি বারবার বলো, আমি…

Read More

তেলচিটে ক্যানভাসে

তেলচিটে ক্যানভাসে

জানি, তখন এক অন্য সকাল হাতছানি দেয়, অন্য আকাশ হাসে, অন্য মাটির রঙ সাজাই, তেলচিটে ক্যানভাসে, রাত্রি তবু বাধ সাধে না, তোর মরমে আর কাঁদে না, আকাশ শুধু হাসে, সে হাসতে ভালবাসে।। শহর জোড়া রক্ত, আজও তোর গন্ধ ছড়ায়, তোর সুখেরই ইশারায়, ধমনিজাল বুনে বেরায়।। তাই বুঝি আজ হাল ছেড়েছি, তোর ঠোঁটেতে বিষ ঢেলেছি, মরে যাওয়ার আশায়, রক্তাভ কুয়াশায়।। লেখার আজ দিন যে শেষ, রক্ত মেখে নিরুদ্দেশ, নতুন শুরুর রেশ রেখে আজ, আমি বরং একলা থাকি, ওটাই হবে বেশ।। Abhijit DeyMyself Abhijit Dey, from kolkata. I work with Trans technologies…

Read More

রঙিন

রঙিন

হাজার রঙের মিলনে – রঙিন এ মন , বলে যায় কত কথা – ভরে দেয় কত রঙ ।                        সাদা কাগজের পাতা –     ভরে কলমের খোঁচায় , কিম্বা ভরে ওঠে – আঁকিবুঁকি রঙ পেন্সিলের ছোঁয়ায় । মন চায় বলতে – জমানো কত কথা – কত ব্যথা , কিছু ভাষা পায় – কিছু বা রয়ে যায় হয়ে ভাষাহীনা ।                           কত সম্পর্ক যায় ভেসে –      বেমালুম মিথ্যার জোয়ারে , দিন যায় রাত আসে – সময়ের চক্রবূহ্যে স্মৃতি বয়ে নিয়ে ,                           ফেরে সম্পর্ককে । কখন বা কত কথা –…

Read More

মরচে

মরচে

ঐ মরচে ধরা নীল শাড়ীটার আঁচলে আজ জালের সুখ; ভালোবাসা যায় গড়িয়ে সুখ ছাড়িয়ে কোন্ সে দুর!! দিন শেষের ঐ রক্তিম আলোয় চোখ ধুয়েছে কালকে সে; ঠোঁট ছুঁয়েছে অশ্রুকণা চিবুকেও তার আনাগোনা; গলার কাছে ঠিক যেন সে পেঁচিয়ে ওঠা সরীসৃপ! শ্বাসের ওপর শ্বাস ছুটেছে তাই কি এরা খুব চটেছে! হা হা হা হা –  –  –  –  –  – হাসছে যারা মুখের ওপর হাতটি রেখে, জানে তারা জয়ী যারা ; জয়ের কান্নাও ভারী যে!! আমার মতো আমার ধারা; আমার মতোই আমি সে; তোমার তুমি জয়ী হও আমার আমি হারতেই চাই…

Read More

স্বপ্ন উড়ান

স্বপ্ন উড়ান

আকাশ বুকে উড়বো বলে , সাধ জেগেছে খুব। ওই পাখীদের সঙ্গী হবো যাবো অচীনপুর। মেঘের সারি আদর দেবে বলবে মুচকি হাসি, আমাকেও তোর সঙ্গে নিবি? আমিও আকাশ বুকে ভাসি! সূয্যি যখন আবীরে রাঙিয়ে দিল মুখ, আহা! কি অচেনা মায়া ! তাতেই অলীক সুখ! রাত্রিসুখে মোহিত হবো তারার দেশে গিয়ে, তাই যে আমার মন মাধুরি দিচ্ছে সপ্তনদী পাড়ি, ব্যাথার কথা ব্যাথাই জানুক আজ ব্যাথার সাথেও আড়ি! এ যে আমার ব্যর্থ হিয়ার সার্থক অভিলাষ, দিগন্তে তাই রঙের নাচন , চলছে মনমাতালের মন হারানোর মাস! আজ তাই সব ছেড়ে ওই আকাশ বুকে কাটাবো…

Read More

চুপিচুপি

চুপিচুপি

নিথর বনানী হারিয়েছি পথ তুমি আমি দুজনায় পথের শেষের অজানা স্বপ্ন রয়েছে অপেক্ষায় ছায়াপথে চলা পাখির কুজন হাতে হাত রেখে আমরা দুজন এগিয়েছে পথ দিঘির টানে গভীরতা খোঁজে জীবনের মানে দিঘির ঘাটে  শান্ত বিকেলে পা ছুঁয়ে রাখা শীতল জলে সবুজে ঢেকেছে যেন তার কুল বুকে ফুটে আছে শালুকের ফুল বৃষ্টির ফোঁটা পদ্ম পাতায় নিঃশব্দে জীবন মাতায় চোখে চোখে আজ অনেক কথা নিস্তব্ধতা দিয়েছে বারতা সুচন্দ্রা মুখার্জীসুচন্দ্রা মুখার্জী চন্দননগর হুগলী, ইন্ডিয়া। শিক্ষা : কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক। ছোট্ট থেকেই স্বপ্ন দেখতে ভালবাসা। সেই স্বপ্নেরই ফসল এইসব টুকরো লেখা।More Posts

Read More

ফুচকা

ফুচকা

সিদ্ধ আলুর খোসা ছাড়াতে দেখেছি রবি কাকুকে,  সেই ছোট্ট বেলা থেকে। যখন আমার কদম ছাট্  ছিল, এখন ওটা হেয়ার কাট হয়েছে, তবুও রবি কাকু এখনও খোসা ছাড়িয়ে যায়।। আলুর খোসা টা কবে যে প্রেমের খোসা হয়ে গেল বুঝে উঠতে পারিনি, শুধু তুই বলেছিলি প্রেম নাকি গোলা থাকে ওই বড় পাত্রটার টক্ জলে।। শুধু রবি কাকু কেন, সব খোসা ছাড়ানো কাকুর দোকানেই নাকি প্রেম পাওয়া যায়।। কিন্তু যাদের ছাড়ানো হচ্চে তাদের ও কি প্রেম পায়? তারাও তো ওই পবিত্র পাত্রে ডুব দিয়ে এসে তোর শাল পাতায় লাফ মারে, সাথে মসলা মেশানো নোন্তা…

Read More

দহন জ্বালা !

দহন জ্বালা !

প্রথমবার ওই আগুনের স্পর্শের সাথে আলাপ বে-পাড়ার এক শ্মশান ঘাটে , তারপর অবশ্য খুব কাছে দেখার সুযোগ আসে , সেটা ২০০৮, বারাণসী ঘাট ! হরিশচন্দ্র ঘাট , ছোটবেলায় আমরা বইতে পড়েছিলাম ‘The Burning Ghat’ এর গল্প , চাক্ষুস দেখার খিদেটা যদিও তখন থেকেই , টিভিতে কতবার দেখেছি কাঠ দিয়ে সাজানো বিছানার ওপর সাদা চাদর পাতা তার ওপরই একটা অসাড় দেহ , জাগতিক সব বিষয় থেকে দূরে বহুদূরে , নেই কোনো অনুভূতি ! আর তার চারপাশে কান্নার রোল …. হঠাৎ একটা আগুনের প্রবেশ অদ্ভুত থমথমে , কাঠের বিছানার একদম নিচ প্রান্তে ছোঁয়ানো হলো…

Read More
Page 1 of 2
1 2